মেসির জার্সি পোড়াতে বলে কঠিন শাস্তি পেলেন জিব্রিল!

387
Advertisement

 

আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসির জার্সি পোড়াতে বলেছিলেন তিনি। গত রাশিয়া বিশ্বকাপের আগমূহুর্তে ইসরায়েলের বিপক্ষে একটা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল আর্জেন্টিনার। এই ম্যাচ খেলতে আসলে মেসির জার্সি পোড়ানোর হুমকি দেন ফিলিস্তিন ফুটবল সংস্থার সভাপতি জিব্রিল রাজোব। এবার এই ঘোষণার জন্যই সভাপতির পদ হারাতে হলো জিব্রিলকে। তাকে রীতিমতো বহিস্কার করা হয়েছে!

বিশ্বকাপের আগে ওই সময়টিতে ফিলিস্তিন-ইসরায়েলের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ চলছিল। বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য ওই সময়ে ইসরায়েলের বিপক্ষে মেসিদের একটি প্রীতি ম্যাচ পূর্বনির্ধারিত ছিল। ম্যাচের কিছুদিন আগে ভেন্যু বদলে জেরুজালেম করা হয়। স্বাভাবিকভাবেই সিদ্ধান্তটি ভালো চোখে দেখেনি ফিলিস্তিন। তখন ফিলিস্তিন ফুটবল সংস্থার সভাপতি জিব্রিল রাজোব দেশের মানুষকে আহ্বান জানান মেসির জার্সি ও ছবি পুড়িয়ে প্রতিবাদ করতে

রাজোবের এমন ঘোষণার পর জেরুজালেমে ম্যাচটি হলে তা পণ্ড করার সব রকম চেষ্টা হবে, মেসিদের নিরাপত্তা হুমকির মধ্যে পড়বে-এমন হুমকিও আসতে থাকে। শেষ পর্যন্ত অবশ্যে আর্জেন্টিনা জেরুজালেমে খেলতে যায়নি। এবং এর পেছনে তারা কোনো রাজনৈতিক কারণও দেখায়নি। আর্জেন্টিনা ম্যাচটি স্থগিত করার পর রাজোব মেসির বিশালকায় ছবি পাশে রেখে সংবাদ সম্মেলন করে ধন্যবাদ দিয়েছিলেন মেসি ও আর্জেন্টিনাকে।

তবে ফিফা মনে করছে, এমন ঘোষণা দিয়ে রাজোব ফিফার আচরণবিধি ভেঙেছেন। তার কথার মধ্যে উস্কানি ছিল। আনুষ্ঠানিক নোটিশে রাজোবের জার্সি পোড়ানোর ঘোষণাকে বলা হয়েছে ‘ঘৃণা ও সহিংসতা ছড়ানোর মতো অপরাধ’। এ কারণে ফিফার আচরণবিধি-সংক্রান্ত কমিটি ৫৩ ধারায় রাজোবকে এক বছরের জন্য ফিফা-সম্পর্কিত সব কাজ থেকে নিষিদ্ধ করেছে। পাশাপাশি ২০ হাজার ডলার জরিমানাও করা হয়েছে।