জেলা ক্রীড়া সংস্থায় কাউন্সিলর হলেন যারা

658
Advertisement

: দীপ্ত হান্নান :
রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী কমিটির আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে কাউন্সিলরদের তালিকা চুড়ান্ত করা হয়েছে। ২৬ আগস্ট ছিল কাউন্সিলরদের নামের তালিকা প্রদানের শেষ দিন। এদিন জেলা ক্রীড়া সংস্থার গঠনতন্ত্রের ধারা মতে জেলা প্রশাসকের মনোনীত, বিভিন্ন সরকারী ও স্বায়ত্বশাষিত অফিস, মহিলা ক্রীড়া সংস্থা, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ক্লাব কাউন্সিলরদের প্রতিনিধির নাম চুড়ান্ত ভাবে প্রেরণ করা হয়। রেজিস্ট্রেশনের অপেক্ষায় থাকা নতুন ৭টি ক্লাবের ভাগ্য ঝুলে আছে আগামী ১লা সেপ্টেম্বর সংস্থার বার্ষিক সাধারণ সভা পর্যন্ত। ঐদিনই চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসলে এই ৭টি ক্লাব তাদের প্রতিনিধির নাম প্রেরণ করার সুযোগ পাবেন।
কার্যকরী কমিটিতে পদের সংখ্যা : জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ কর্তৃক সর্বশেষ সংশোধিত জেলা ক্রীড়া সংস্থার সংস্থার গঠনতন্ত্রে পদের সংখ্যা বাড়ানো হলেও ক্লাব কাউন্সিলরদের সংখ্যা কমিয়ে আনা হয়েছে। আগে ক্লাব থেকে দুজন প্রতিনিধির নাম পাঠানোর নিয়ম থাকলেও সংশোধিত গঠনতন্ত্রে সেই সংখ্যা একজনে নিয়ে আসা হয়েছে। তাছাড়া পরিচালনা পরিষদেও এনেছে পরিবর্তন। এখানে অন্যান্য পদগুলোর সংখ্যা ঠিক থাকলেও সহ সভাপতি তিন থেকে বাড়িয়ে চারজনে করা হয়েছে এবং নির্বাহী সদস্য ১১ থেকে করা হয়েছে ১৪ জনে। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলা ক্রীড়া সংস্থার কমিটি ৩১ সদস্য বিশিষ্ট হবে।
জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি : জেলার ক্রীড়ার বর্তমান সংগঠক ও সাবেক ক্রীড়াবিদদের মধ্য থেকে যাচাই-বাছাই করে জেলা প্রশাসকের পাঁচজন প্রতিনিধির নাম চুড়ান্ত করা হয়। তারা হলেন হাজী মো. কামাল উদ্দীন, সুনীল কান্তি দে, মো. শাহ আলম, ওয়াশিংটন চাকমা ও রতন বড়–য়া। এর বাইরেও পদাধিকার বলে সংস্থার সভাপতি হিসেবে জেলা প্রশাসক একে এম মামুনুর রশিদ ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এস এম শফি কামালের নাম রয়েছেন।
সরকারী ও স্বায়ত্বশাষিত অফিস প্রতিনিধি : জেলায় অবস্থিত বিভিন্ন সরকারী ও স্বায়ত্বশাষিত অফিস প্রতিনিধি হিসেবে যাদের নাম এসেছে তাদের মধ্যে পদাধিকার বলে পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবীর, পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, জেলা ক্রীড়া অফিসার স্বপন কিশোর চাকমা, জেলা ক্রীড়া সংস্থার বর্তমান সাধারণ সম্পাদক বরুন বিকাশ দেওয়ান। অন্যরা হলেন ডাঃ মুহাম্মদ শওকত আকবর খান (সিভিল সার্জন প্রতিনিধি), মেজর সৈয়দ তানভীর সালেহ (রাঙ্গামাটি রিজিয়ন প্রতিনিধি), মোহাম্মদ আবদুল আউয়াল ( আনসার ও ভিডিপি প্রতিনিধি), মেজর মোহাম্মদ নাজমুল্লাহে ওয়াদুদ ( বিজিবি প্রতিনিধি), ত্রিদীপ কান্তি দাশ (জেলা পরিষদ প্রতিনিধি), ড.প্রকাশ কান্তি চৌধুরী (পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড প্রতিনিধি)।
মহিলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি ঃ জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে পাঠানো প্রতিনিধির নাম এবারও কোন পরিবর্তন আসেনি। ২০১৪ সালে যাদের নাম পাঠানো হয়েছে এবারও তালিকায় তাদের নাম এসেছে। তারা হলেন বীনা প্রভা চাকমা, বৈশালী রায় ও মনোয়ারা জসিম।
উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি : জেলার ১০টি উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা নতুন ও পুরাতন মিলে প্রতিনিধিদের নাম প্রেরণ করেছে। তারা হলেন মোস্তফা কামাল ( রাঙ্গামাটি সদর), বিদর্শন বড়–য়া (কাপ্তাই), সুদর্শন বড়–য়া (বিলাইছড়ি), ঝিল্লোল মজুমদার (নানিয়ারচর), কুলিন মিত্র চাকমা আদু (লংগদু), রতন দাশ (বাঘাইছড়ি), জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা ( জুড়াছড়ি), দীপেন দেওয়ান টিটু (বরকল), ক্যজাই মারমা (কাউখালী), উবাচ মারমা (রাজস্থলী)।
ক্লাব প্রতিনিধি : জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্তর্ভুক্ত ৩২টি ক্লাব থেকে যারা প্রতিনিধি হয়ে এসেছেন তারা হলেন, মনিরুজ্জামান মহসিন রানা (আগামী সংঘ), শফিউল আজম (রিজার্ভ বাজার ক্রিকেট ক্লাব), এ্যাড. মামুনুর রশিদ মামুন (সাউথ রাঙ্গামাটি), বেনু দত্ত (উইন স্টার), রীজেশ বড়–য়া রুমেল (রাঙ্গামাটি ক্রিকেটার্স), মঈন উদ্দিন সেলিম (রাইজিং স্টার ক্লাব), মিথুল দেওয়ান (প্রগতি সংঘ), জয়জিৎ খীসা নতুন ( রাইকা ক্লাব), আবদুল মামুন ( শহীদ শুক্কুর এ্যাথঃ ক্লাব), মনোজ ত্রিপুরা (সৃজন স্পোটিং ক্লাব), আবু তৈয়ব (প্রতিভা ক্রিকেট ক্লাব), আশীষ কুমার চাকমা নব ( প্রত্যাশা ক্লাব), শ্যামল দেব (রিজার্ভ মুখ স্পোর্টিং ক্লাব), মো. মামুন (প্রতিভাস ক্লাব), আবদুস সবুর (সবুজ সংঘ), সাইফুল ইসলাম রাশেদ ( রফিক স্মুতি ক্রিকেট ক্লাব), মো. ইফতেখার জামাল হোসেন (ইয়াং রাঙামাটি), মনিরুল ইসলাম (মুকুল ফৌজ), প্রীতম রায় (রাজবাড়ী একাদশ), নিভানন চাকমা (ছদক ক্লাব), আহম্মেদ হুমায়ুন কবির (অভিলাষ ক্রিকেট ক্লাব), শেখর সেন (ব্রাদার্স ইউনিয়ন), তাপস কুমার চাকমা (চেঙ্গী মুখ একাদশ ক্লাব), ঝিনুক ত্রিপুরা ( বলাকা ক্লাব), অরুন কান্তি চাকমা (মোনঘর আবাসিক বিদ্যালয়), প্রীতিরেশ দেওয়ান ( ব্রাদার্স স্পোর্টিং ক্লাব), নুরুল হাকিম মিয়া ( আবাহনী ক্রীড়া চক্র), রনেন চাকমা ( ইয়থ স্পোর্টিং ক্লাব), আহম্মদ ফজলুর রশিদ সেলিম ( কিশোর সংগঠন), আলী বাবর (মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব), মোঃ তৌহিদুল আলম মামুন (প্রতিভাস ক্লাব), মো. রমজান আলী (প্রভাতী স্পোর্টি ক্লাব)।

অপেক্ষায় যে সব ক্লাবের প্রতিনিধি : রেজিষ্ট্রশন প্রক্রিয়া এখনো চুড়ান্ত না হওয়ায় অপেক্ষা করতে হচ্ছে নতুন ৭টি ক্লাবকে। আগামী বার্ষিক সাধারণ সভায় চুড়ান্ত অনুমোদন পেলে এসব ক্লাব প্রতিনিধি প্রেরণ করার সুযোগ পাবেন। ক্লাবগুলো হচ্ছে আমানত বাগ স্পোর্টিং ক্লাব, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রব, ফুরোমন ক্লাব, কাটাছড়ি স্পোর্টিং ক্লাব, সৃষ্টি স্পোটিং ক্লাব, সাপছড়ি রিবেং ক্লাব, আর্যদেব লয়্যেল ক্লাব।