বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের শিরোপা জিতল লংগদু উপজেলা

1614
Advertisement

: দীপ্ত হান্নান : ১ম বারের মত আয়োজিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ (অনুর্ধ্ব-১৭) ফুটবল টুর্ণামেন্টে রাঙ্গামাটি জেলার খেলায় শিরোপা জিতেছে লংগদু উপজেলা। বুধবার বিকেলে রাঙ্গামাটি চিংহ্লা মং মারী স্টেডিয়ামে টুর্ণামেন্টের ফাইনালে তারা টাইব্রেকারে রাজস্থলী উপজেলাকে ৪-৩ গোলে পরাজিত করে এ গৌরব অর্জন করে। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসন ও জেলা ক্রীড়া অফিস এ টুর্ণামেন্ট আয়োজন করে। রাঙ্গামাটি পৌরসভাসহ জেলার দশ উপজেলা নক আউট পদ্ধতির এ টুর্ণামন্টে অংশ নেয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ী এবং বিজীতদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন।

এসময় জেলা প্রশাসক একে এম মামুনুর রশিদ এর সভাপতিত্বে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান তরুন কান্তি ঘোষ, পুলিশ সুপার আলমগীর কবির, পৌরমেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড সদস্য প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বরুন দেওয়ান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম হচ্ছে খেলোয়াড় তৈরির একটি সম্ভাবনাময় অঞ্চল। অতীতে এ অঞ্চল থেকে অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সুনামের সাথে খেলেছেন। এ অঞ্চলের মেয়েরা এখন সুনামের সাথে খেলছে।

তিনি বলেন, খেলার মানের কথা সবাইকে ভাবতে হবে, প্রতিভাবান খেলোয়াড় খুঁজে বের করতে হবে। পার্বত্যাঞ্চলের ক্রীড়াঙ্গনের হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরিয়ে আনতে সবাইকে এক হয়ে কাজ করে যেতে হবে। আমরা ক্রীড়া অবকাঠামো উন্নয়ন থেকে শুরু করে খেলাধুলা পরিচালনার জন্য সবধরণের সহযোগিতা করে যাব। তবে খেলাধুলা যাতে বছরের সবসময় মাঠে থাকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

এর আগে অনুষ্ঠিত টুর্ণামেন্টের ফাইনালে খেলার প্রধমার্ধে মেহেদী হাসানের গোলে এগিয়ে যায় লংগদু। দ্বিতীয়ার্ধের রাজস্থলী উপজেলার মোঃ হাসান পরপর দুই গোল করে দলকে ২-১ গোলের লিড এনে দেয়। পরে খেলার শেষের দিকে মেহেদী হাসান গোল করে লংগদুকে সমতায় ফেরান। এরপর অতিরিক্ত সময়ে খেলা গড়ালেও কোন দলই গোল করতে পারেনি। ফলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে লংগদু ৪টি শটের মধ্যে ৪টিই গোল করলেও, রাজস্থলী ৫ শটের মধ্যে ৩টি গোল করতে সমর্থ হয়।

টুর্ণামেন্টে অসাধারণ নৈপুন্যের জন্য সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন রাজস্থলী উপজেলার লুপি ত্রিপুরা এবং ৫ গোল করে সেরা গোলদাতার খেতাব জেতেন বিলাইছড়ি উপজেলার সোহাগ বাবু মারমা।