প্রতিভাসকে গোল বন্যায় ভাসাল ছদক !

1134
Advertisement

: দীপ্ত হান্নান : লীগের বিগ ম্যাচে প্রতিভাসকে অসহায় বানিয়ে গোল বন্যায় ভাসাল ছদক ক্লাব। চলতি লীগে আগের ম্যাচগুলোতে কোন গোল না খাওয়া প্রতিভাস এদিন গো হারা হেরেছে। ছদকের কাছ থেকে তারা গুণে গুণে পাঁচ গোল হজম করে। সোমবার মারী স্টেডিয়ামে ‘এ’ গ্রুপে মর্যাদা ও শীর্ষস্থান দখলের লড়াইয়ে প্রতিভাসকে ৫-০ গোলে পরাজিত করে ছদক। টানা পাঁচ জয়ে ক্লাবটি সুপার লীগ শুরু করবে পুর্ণ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে।

মাঠে নামার আগে পয়েন্ট, শক্তি-সামর্থ্য ও যোগ্যতায় দুদলেরই ছিল সমান অবস্থান। ম্যাচের শুরুটাও হয়েছিল প্রত্যাশিত লড়াইয়ে। প্রথম পনের মিনিটের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল প্রতিভাস, খেলাও ছিল গোছালো। কিন্তু খেলা যত গড়াতে থাকে, প্রতিভাস কোনটাসা হয়ে পড়ে ছদকের পরিকল্পিত খেলার কাছে। ম্যাচের ২২ মিনিটে ছদকের ফরোয়ার্ড বিদেশি ইসমাঈল বাঙ্গুরা গোল করে দলকে ১-০ তে এগিয়ে নেয়। ৪০ মিনিটে আসে তাদের দ্বিতীয় গোল। গোল করেন শফিক। ২-০ লিড নিয়ে বিরতিতে যায় ছদক। বিরতি থেকে ফিরে এসে আরো বিধ্বংসি হয়ে উঠে ক্লাবটি। এই অর্ধে ছদক ক্লাব আরো ৩টি গোল আদায় করে নেয় । ম্যাচের ৪৫ মিনিটে শৈল দেওয়ান, ৫৫ মিনিটে প্রদীপ বড়–য়া ও ইসমাঈল বাঙ্গুরা ৬০ মিনিটে গোল করে দলের লিড ৫-০ তে নিয়ে যায়।

আগের চার ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা প্রতিভাসকে এদিন ম্যাচে খুঁেজই পাওয়া যায়নি। গোল ব্যবধান কমাতে কোন আক্রমনও নজরে আসেনি এদিন। প্রতিপক্ষের মুহুর্মুহু আক্রমনে খৈই হারিয়ে ফেলে দলটি। বিপরীতে, গোলের ব্যবধান আরো বেশি হতে পারত যদি ছদকের ফরোযার্ডরা সহজ কিছু গোল নস্ট না করতো। শেষ পর্যন্ত বড় ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠে ছাড়ে ছদক ক্লাব। ম্যাচটি দেখতে এদিন রেকর্ড সংখ্যক দর্শক গ্যালারীতে উপস্থিত ছিল।

এ জয়ের ফলে পুর্ণ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সুপার লীগে চলে গেল ছদক ক্লাব। রানার আপ হিসেবে সঙ্গে নিয়ে গেল প্রতিভাস ক্লাবকে। ক্লাবটির পয়েন্ট সংখ্যা ১২।

মঙ্গলবারের খেলা ঃ আবাহনী ক্রীড়া চক্র বনাম জেলা মুকুল ফৌজ (বিকাল ৩টা)