সুপার লীগে প্রতিভাসের গুরুত্বপুর্ণ জয়

894
Advertisement

: কাজী রোমাট, স্পেসাল করেসপন্ডেন্ট: ১ম বিভাগ ফুটবলের সুপার লীগে গুরুত্বপুর্ণ জয় পেয়েছে প্রতিভাস ক্লাব।  বুধবার সুপার লীগের গুরুত্বপুর্ণ ম্যাচে মুকুল ফৌজকে ৪-১ গোলে পরাজিত করে শিরোপা দৌড়ে ঠিকে থাকল ক্লাবটি। এ জয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ছদকের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে প্রতিভাস। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে ছদক আছে এক নম্বরে। ২৩ নভেম্বর শিরোপার হিসাব নিকাশে ছদক আর প্রতিভাস একে অপরের মুখোমুখি হবে।

মুকুল বনাম প্রতিভাসের মধ্যকার ম্যাচটা দুদলই সমান তালে শুরু করে। দুটি দলই নিজেদের শক্তি সামর্থ জানান দিতে একে অপরের সীমানায় আক্রমন-পাল্টা আক্রমন চালায়। ম্যাচের ৬ মিনিটে মুকুলের রিফাত গোল করে মুকুল ফৌজকে ১-০ তে এগিয়ে রাখে। পিছিয়ে পড়ে প্রতিভাস প্রাণপণ চেষ্টা চালায় ম্যাচে ফিরতে। ২০ মিনিটের মাথায় টনি বর্মণের কর্নার থেকে সুইলাচিং মার্মার ব্যাকহিল মুকুল ফৌজের গোল রক্ষক উথিংফ্রু মার্মা ঠেকিয়ে দেন। এর ঠিক দুই মিনিট পর টনি বর্মণের কাউন্টার এট্যাক থেকে হেড দিতে ব্যর্থ হয় সানি বড়ুয়া এবং ফিরতি এট্যাকে টনি বর্মণের বাড়ানো বলে গোল মিস করেন রোমেল দেওয়ান।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতে আক্রমনের ধার বাড়িয়ে দেয় প্রতিভাস। ফলও আসে দ্রুতসময়ে। ম্যাচের ৪৬ মিনিটে সানি বড়ুয়ার এসিস্টে রোমেল দেওয়ান গোল করে দলকে ১-১ সমতা ফেরান।  ৫০ মিনিটে টনি বর্মণ একক প্রচেষ্টায় মধ্যমাঠ থেকে বল নিয়ে গোল করে প্রতিভাসকে ২-১ গোলের লিড এনে দেয়। এর মিনিট দুয়েক পরে সানি বড়ুয়ার বাড়ানো বলে টনি বর্মন আরো এক গোল করে প্রতিভাসকে ৩-১ এ এগিয়ে রাখে। পিছিয়ে পড়ে মুকুল ফৌজ বারবার চেষ্টা করেও ব্যবধান কমাতে পারেনি, উলটো ৬২ মিনিটে ফিরতি বলে শেষ পেরেকটা ঢুকিয়ে দেন সানি বড়ুয়া। ৪-১ গোলে ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ম্যাচ শেষ করে প্রতিভাস। এর আগে ৭১ মিনিটে একটি সহজ সুযোগ মিস করে মুকুল ফৌজের খাইরুল ইসলাম।

এদিন দুটি গোলসহ অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্য প্রদর্শন করায় বিজয়ী দলের টনি বর্মণ ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন । বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক ও মোহামেডান ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল মন্নান ঘোষিত পুরষ্কারের নগদ অর্থ টনি বর্মনের হাতে তুলে দেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক কোষাধ্যক্ষ ও বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ আব্দুল মতিন।

শুক্রবারের খেলা ঃ  ছদক ক্লাব বনাম প্রতিভাস ক্লাব (বিকাল ৩টা)।